Barbaroslar

বারবারোসা ভলিউম ৩২ বাংলা সাবটাইটেল অনুবাদ মিডিয়া

ভলিউম দেখতে নিচে যান

এক ফতোয়া জারির মাধ্যমে এ পদফ্যুতি’কে স্বীকৃতি দিয়ে বিদ্রোহী নেতাকে বসফরাসের দুর্গের দায়িতৃ দেয়া হয়। এরপর খ্বাচাসূলভ সেরাগলিও প্রাসাদে অবসর গ্রহণ করে সেলিম নিজের তরুণ চাচাতো ভ্রাতা মুস্তাফাকে সুলতান হিসেবে রাজ্যভার অর্পণ করে পরামর্শ দেন বেশি পরিবর্তনের পথে না যেতে আর নিজের তুলনায় সফল শাসনকালের শুভেচ্ছাও পৌছে দেন ভ্রাতার কাছে।

এরপর বিষপানের চেষ্টা করে মুস্তাফা, সেলিমের মুখের কাছ থেকে কাপ ছুড়ে ফেলে তার জীবন রক্ষার শপথ করে৷ এভাবে যাত্রা শুরু হয় সুলতান চতুর্থ মুস্তাফার । কিন্তু মাত্র কয়েক মাস শাসন করতে সমর্থ হন তিনি। সেলিমের বন্ধু এবং সমর্থক ছিল বেশ কিছু । বিশেষ ভাবে মুস্তাফা বায়রাকদার দানিয়ুবের রাস্তরকের স্বাধীন পাশা । সংক্কারবাদী হিসেবে সেলিমের গুণগ্রাহী মুস্তাফা তাকে ক্ষমতায় ফিরিয়ে আনার ব্যাপারে দৃঢ়প্রতিজ্ঞ হয়ে ওঠে। রাশিয়ার সাথে যুদ্ধবিরতি চুক্তির ফলে নিজের সেনাবাহিনী ও আদ্রিয়ানোপলের বিশ্বস্ত প্রধান উজিরের বাহিনী নিয়ে একত্রে নবীজির চিহ্ত বহন করে ইস্ত
স্বুলে যাত্রা করে মুস্তাফা ।

তার উদ্দেশ্য ছিল জানিসারিসদের ভয় দেখিয়ে বশীভূত করে প্রাসাদ দখল করা; মুস্তাফাকে সিংহাসনচ্যুত করে সেলিমকে পুনর্বহাল করা।” সত্যিকার সুলতান সেলিম”-এর সাথে দেখা করতে চাইলে প্রাসাদ দ্বাররক্ষকদের বাধায় তাদের ওপর ঝাঁপিয়ে পড়ে মুস্তাফা বাহিনী। কিন্তু এই সংক্ষিপ্ত বিলম্ব হয়ে দীড়ায় অভিশাপ। এই দাবির মুখে সুলতান মুস্তাফা তৎক্ষণাৎ সেলিম ও তাঁর ভাই মাহমুদকে হত্যার নির্দেশ দেন। ফলে ওসমান হাউজে একমাত্র জীবিত থাকবেন মুস্তাফা ।

See also  বারবারোসলার ভলিউম ৩১ বাংলা সাবটাইটেল অনুবাদ মিডিয়া

হত্যাকারীরা ক্রন্দনে ভেঙে পড়ে সেলিমকে মেরে ফেলে ও তীর দেহ ভেতর উঠানে পৌছে যাওয়া বায়রাকদারের সামনে প্রদর্শন করা হয়। এরপর আলবেনীয়দের সহায়তায় মুস্তাফাকে সিংহাসন থেকে টেনে-হিচড়ে নামিয়ে আনে বায়রাকদার। ইতিমধ্যে বিশ্বস্ত ভূত্যের সহায়তায় স্নানঘরের অগ্নিকুন্ডের মাঝে লুকিয়ে পড়ে মাহমুদ । এখানে বিজয়ী আলবেনীয়রা তাকে উদ্ধার করে রাতের পূর্বেই সেরাগলিও থেকে ঘোষণা করা হয় যে চতুর্থ মুস্তাফা পদচ্যুত হয়ে অটোমান সাম্রাজ্যের সিংহাসনে বসেছেন সুলতান দ্বিতীয় মাহমুদ ।

মুস্তাফা বায়রাকদার প্রধান উজির নিযুক্ত হয়। গুপ্তঘাতকদের হত্যা করে, মুস্তাফার প্রিয় পাত্র ও ইয়ামাক বিদ্রোহের প্রধানকে হত্যার পর সেলিমের শুরু করা সংস্কারকাজ এগিয়ে নেওয়ার প্রতিজ্ঞা গ্রহণ করে মুস্তাফা বায়রাকদার । নতুন শৃঙ্খলায় ইউরোপীয় প্রশিক্ষণে সেনাবাহিনী পুনঃপ্রতিষ্ঠা করে প্রধান উজির বিভিন্ন সংস্কার নীতিকে পুনরায় শুরু করে। ক্ষেত্রবিশেষে পরিবর্তন আনে প্রধান উজির । এর অন্যতম নির্দিষ্ট একটি ছিল দীর্ঘদিনের অপব্যবহার রোধকরণের জন্য জানিসারিসদের বাহিনীকে ঢেলে সাজানো । প্রথমবারের মতো সাম্রাজ্যের সব অংশ থেকে উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের সভা অনুষ্ঠিত হয় রাজকীয় প্রাসাদে।

See also  বারবারোসলার ভলিউম ৩০ বাংলা সাবটাইটেল অনুবাদ মিডিয়া

স্বতঃস্ফূর্ত বিতর্কের শেষে সরকারের মাঝে একমত্য প্রতিষ্ঠিত হয়। এতে করে আইন ও নাগরিক বিষয়ে সবার দায়িত্ব সুপ্রতিষ্ঠিত হয় । নিজের ক্ষমতার প্রতি হুমকি আসবে ভেবে সুলতান মাহমুদ এদের দাবি মেনে নিতে বাধ্য হন। উলেমা ও জানিসারিসরা চুপচাপ সহ্য করে যায় ও প্রধান উজির নিজের আলবেনীয় ও বসনিয়ার বাহিনীকে নিজ নিজ দেশে ফেরত পাঠায়।

জানিসারিসরা আবারো বিদ্রোহে খেপে ওঠে । বায়রাকদারকে তার প্রাসাদে আক্রমণ করা হয়। আগুন লাগিয়ে দেয়া ও বায়রাকদার পালিয়ে গেছে এমন একটি টাওয়ার জ্বালিয়ে ছারখার করে দেয়া হয়। এভাবে পুড়ে অঙ্গার হয়ে যায় প্রধান উজির। প্রতিক্রিয়াশীল গোষ্ঠী অবশেষে বিজয় লাভ করে। পুরাতন বিশৃঙ্খল অবস্থা পূর্বের মতোই শক্ত হয়ে প্রতিষ্ঠিত হয়।

সুলতান তৃতীয় সেলিমের সংস্কারকাজ কিছুদিনের জন্য মুলতবি হয়ে যায়। অটোমান সুলতানদের মাঝে একাকী সেলিম সাম্রাজ্যের আমূল সংস্কারের কাজে আত্মনিয়োগ করেছিলেন। ইসলামের এঁতিহ্যের সাথে সংগতি রেখে পূর্বদিকে যা করে গেছেন সুলতান সুলেমান আড়াইশ বছর পূর্বে, সেলিম ধর্মনিরপেক্ষতার ওপর ভিত্তি করে পশ্চিমে তাই করতে উদ্যোগী হয়েছিলেন। অটোমান সাম্রাজ্যকে পশ্চিমা সভ্যতার পথে পরিচালনায় একাগ্র হলেও নিজের জনগণের চরিত্র সম্পর্কেই অন্ধ রয়ে গিয়েছিলেন সুলতান সেলিম।

See also  বারবারোসলার ভলিউম ৩১ বাংলা সাবটাইটেল অনুবাদ মিডিয়া

জনগণের কল্যাণ চাইলেও পূর্বপুরুষদের ন্যায় যুদ্ধক্ষেত্রে নেতৃত্‌ দিতে ব্যর্থ হন সুলতান; আর এভাবে তাদের শ্রদ্ধা ও বিশ্বাস অর্জনে ব্যর্থ হন সুলতান। অন্যদিকে অবিবেচনা ও পশ্চিমা ধ্যান ধারণার প্রতি অতিরিক্ত আগ্রহবশত নিজের কর্মচারীদের মাঝে সংস্কারবিরোধিদের কুসংস্কারের আগুনে ঘি ঢেলে তাদের প্রতিদ্বন্দ্ী হিসেবে শক্ত করে তোলেন সুলতান।

স্পষ্টভাবে বলতে গেলে সেলিমের ব্যর্থতা নিহিত আছে একটি রূঢ় সত্যের মাঝে। তিনি একটি অসম্ভব উদ্যোগ নিয়েছিলেন অটোমান ইতিহাসের এই পর্যায়ে এসে এক আঘাতেই এঁতিহ্যবাহী সরকার ব্যবস্থা পরিবর্তন করতে চেয়েছেন সুলতান। শতাব্দীর পর শতাব্দী ধরে গড়ে ওঠা সাম্রাজ্য এখনো একগুঁয়ে ও অমলিন রয়ে গেছে। নিজের সাম্রাজ্যে পরিবর্তন আনার ক্ষেত্রে সেলিমের প্রয়োজন ছিল মৌলিক কাঠামোতে পুনরায় শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনা ।

বারবারোসা ভলিউম ৩২ বাংলা সাবটাইটেল অনুবাদ মিডিয়া

আসছে…………

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button